Home / খবর / উত্তরবঙ্গ / জনদরদী বাজেট পেশ অর্থমন্ত্রীর

জনদরদী বাজেট পেশ অর্থমন্ত্রীর

১লা ফেব্রুয়ারি ২০১৭-১৮ বর্ষের বাজেট পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি।মূলত সাধারন হতদরিদ্র মানুষের কথা মাথায় রেখে রেল বাজেটের পাশাপাশি সাধারন বাজেট পেশ করলেন তিনি।

বুধবারে অর্থমন্ত্রী বাজেট পেশ করতে গিয়ে বলেন,২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের বাজেটের মাধ্যমে দারিদ্র দূরীকরণ ও গ্রাম উন্নয়নই আমাদের লক্ষ্য।নয়া বাজেটের ফলে ২০১৯-এর মধ্যে ৫০ হাজার পঞ্চায়েত গরিবিমুক্ত হবে।এছাড়াও আগামী পাঁচ বছরের মধ্যেই কৃষকদের আয় হবে দ্বিগুন।

একনজরে ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের বাজেট

  • ই-টিকিটে আর দিতে হবে না আয়কর।
  • পর্যটন বিভাগের উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিশেষ পরিকল্পনা গ্রহণ।
  • ৫০লক্ষ থেকে ১ কোটি আয়ের ক্ষেত্রে ১০% বাড়তি সারচার্জ
  • ৩লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ে করের ছাড়(এক্ষেত্রে ৮০সি ধারা বিনিয়োগ প্রযোজ্য)এবং ৫লক্ষ টাকা আয়ে ৫%কর দিতে হবে।
  • ৩লক্ষ টাকার ওপর কোনো নগদ লেনদেন করা যাবে না।
  • রাজনৈতিক দলগুলিকে সময়মত আয়কর দেওয়ার পাশাপাশি কোনো দল ২হাজারের বেশি নগদ অনুদান নিতে পারবে না।
  • দেশ ছেড়ে পালানো অপরাধীদের ক্ষেত্রে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হবে।
  • জিপিও এবং প্রধান ডাকঘরগুলিতে পাওয়া যাবে পাসপোর্ট।
  • আধার কার্ডের ওপর ভিত্তি করে খুব শীঘ্রই অর্থনৈতিক লেনদেন চালু করা হবে।
  • কৃষকদের জন্য ফসল বিমা যোজনায় ৯০০০ কোটি টাকা।
  • দুধ প্রক্রিয়াকরণে ৮০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।
  • গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিতে থাকবে ব্রড ব্যান্ড লিঙ্ক।
  • তফশিলী উপজাতিদের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো হল।
  • প্রবীণদের জীবন বিমায় ৮% হারে সুদ দেওয়া হবে।
  • মেডিক্যাল কলেজে ৫০০০ স্নাতকোত্তর কোর্স চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ।

উল্লেখ্য,কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির পেশ করা সাধারন বাজেটের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের বাজেটকে উত্তম আখ্যা দিয়ে তিনি বলেছেন, এবারের বাজেট গরিব মানুষদের হাত শক্ত করতে চলেছে।  

Check Also

জনসভা থেকে মোদিকে পালটা জবাব মমতা ব্যানার্জির

বেজে গেছে ভোটের দামামা। উত্তরবঙ্গে একই দিনে সভা করলেন মোদি ও মমতা। বুধবার দিনহাটায় জনসভা …