আজ সন্ধ্যের মধ্যে আছড়ে পড়তে চলেছে বুলবুল

গতি বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে ‘বুলবুল’। সন্ধ্যের মধ্যে সাগরদ্বীপ ও বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মাঝে আছড়ে পড়ার আশঙ্কা। সর্বোচ্চ গতি হতে পারে ঘণ্টায় ১৩৫ কিমি। অতিভারী বৃষ্টির সতর্কতা দুই চব্বিশ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে। কলকাতাতেও ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় কোমর বেঁধে তৈরি রাজ্য প্রশাসন। উপকূলের জেলাগুলিকে বাড়তি সতর্ক থাকতে বলেছে নবান্ন। কলকাতা-সহ সাত জেলায় কাল সব সরকারি স্কুলে ছুটি ঘোষণা করেছে শিক্ষা দপ্তর।


হাতে আর কয়েক ঘণ্টা। তার আগে বুলবুলের ধাক্কায় বিপর্যয়ের আঁচ পেয়ে, আগাম প্রস্তুত রাজ্য প্রশাসন। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিস্থিতি তদারকির দায়িত্বে মুখ্যসচিব। ৮৪ হাজার মানুষকে অন্যত্র সরানো হয়েছে। সাগরদ্বীপ থেকে ৯০ কিমি দূরে বুলবুল।

এছাড়া নবান্নে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কন্ট্রোল রুম থেকে পরিস্থিতির উপর চব্বিশ ঘণ্টা নজর রাখা হচ্ছে। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে সল্টলেকে সেচ দফতরের কন্ট্রোল রুমও। দুর্যোগের আশঙ্কায় আগামী পনেরো নভেম্বর পর্যন্ত সব ছুটি বাতিল করেছে কলকাতা পুরসভা। শহরের প্রতিটি বোরোয় তৈরি পুরসভার বিশেষ টিম।


উত্তাল সমুদ্রের গতিবিধি নজর রাখতে প্রশাসনের তরফে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে উপকূলরক্ষী বাহিনীকে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সদা সতর্ক নবান্ন। রাজ্যপ্রশাসনের তরফে খোলা হয়েছে একাধিক কন্ট্রোল রুম। ছুটি বাতিল করা হয়েছে সমস্ত সরকারি কর্মীদের। এদিকে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় জেলাপ্রশাসনের আধিকারিকদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক সেরেছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনের তরফে সাধারণ মানুষকে কোনও রকম গুজবে কান দিতে বারণ করা হয়েছে। সব সময় নিজেকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

নবান্নে খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম৷ কন্ট্রোলরুমের টোল ফ্রি নম্বর ১০৭০, কন্ট্রোলরুমের নম্বর ০৩৩-২২১৪৩৫২৬৷

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site is protected by reCAPTCHA and the Google Privacy Policy and Terms of Service apply.