প্রবল বৃষ্টিতে বন্যা পরিস্থিতি উত্তরবঙ্গে, হলুদ সংকেত জারি উত্তরের নদীগুলিতে

বর্ষা শুরু হতেই শিলিগুড়ি সহ উত্তরবঙ্গে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে একটানা বৃষ্টির জেরে জলমগ্ন শিলিগুড়ি শহর ও তার পার্শ্ববর্তি বিভিন্ন এলাকা।শিলিগুড়ি সংলগ্ন ফুলবাড়ির রাস্তা ছোট খাটো নদীর রুপ ধারণ করেছে।ফুলবাড়ির রামনগর মজদুর বস্তি এলাকায় জলের তলায় চলে গিয়েছে বাড়ি-ঘর।সাহুডাঙ্গি এলাকারও একই হাল।


এদিকে জলনিকাশি ব্যবশা বেহাল হওয়ায় শিলিগুড়ি শহরের বিভিন্ন এলাকা জলমগ্ন।শহরের ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের চম্পাসারি,পবিত্রনগর,৪০ নম্বর ওয়ার্ডের দুর্গানগর,৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের শহীদ কলোনি,চয়নপাড়া,ঘোগোমালি এলাকা একপ্রকার জলের তলায়।বৃষ্টিতে মহানন্দা সহ সমতলের অন্যান্য নদীগুলিতে বেড়েছে জলস্তর।বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করছে নদীগুলির জলস্তর।

এদিকে এনজেপি স্টেশনের অবস্থাও বেহাল।জলমগ্ন রেল লাইন।যার জেরে ব্যহত রেল পরিষেবা।নির্ধারিত সময়ের থেকে বেশ কয়েক ঘণ্টা দেরিতে চলাচল করছে ট্রেন।এছাড়াও শিলিগুড়ি মহকুমার খড়িবাড়ি,নকশালবাড়ি এলাকাও জলমগ্ন রয়েছে।


অন্যদিকে প্রবল বৃষ্টির জেরে জলস্তর বেড়েছে কোচবিহার জেলার নদীগুলির। জেলার তোর্ষা,মানসই,রায়ডাক,কালজানি সহ অন্যান্য নদীগুলির জলস্তর বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করছে।প্রশাসনের তরফে ইতিমধ্যেই রায়ডাক নদীতে লাল সংকেত জারি করা হয়েছে।এছাড়াও মানসাই নদীতে হলুদ সংকেত জারি করা হয়েছে।

তুফানগঞ্জে রায়ডাক নদীর জলস্তর বাড়ার কারণে নদী সংলগ্ন এলাকাগুলির বাসিন্দারা ত্রাণ শিবিরে আশ্রয়গ্রহণ করেছেন।

এদিকে জলপাইগুড়ি জেলার ফারাবাড়ি,ভেল্কিপাড়া,আদর্শপল্লী সহ বিভিন্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।বাড়ির ভেতরে ঢুকে গিয়েছে জল।চরম সমস্যায় এলাকার বাসিন্দারা।বেশ কয়েকটি এলাকার বাসিন্দাদের জুটছে না খাবার।তাদের অভিযোগ,প্রশাসনের তরফে কোনও সাহায্য করা হচ্ছে না তাদের।

অন্যদিকে ভুটান পাহাড় এলাকায় প্রবল বৃষ্টির জেরে বানিয়া নদীতে বেড়েছে জলস্তর।কালচিনি ব্লকের দক্ষিন সাতালি ও পশ্চিম সাতালি গ্রামে বানিয়া নদীর জল ঢুকতে শুরু করেছে। গয়েরকাটা সহ ডূয়ার্সের বিভিন্ন এলাকাতেও সৃষ্টি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি।

উত্তরবঙ্গের অন্যান্য তিন জেলা উত্তর দিনাজপুর,দক্ষিণ দিনাজপুর ও মালদাতেও প্রবল বৃষ্টির জেরে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site is protected by reCAPTCHA and the Google Privacy Policy and Terms of Service apply.