মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কান্ড জলপাইগুড়িতে

জলপাইগুড়ি, ৮ ফেব্রুয়ারিঃ ২৭ ফেব্রুয়ারি জলপাইগুড়ি পৌরসভা নির্বাচন।ইতিমধ্যেই শুরু মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর্ব।মঙ্গলবার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কান্ড জলপাইগুড়িতে।


জানা গিয়েছে, তৃণমূল নেতা মলয় ব্যানার্জি(শেখর) দলের টিকিট না পেয়ে নির্দল প্রার্থী হিসেবে আজ মনোনয়ন পত্র পত্র জমা দিতে যান।অভিযোগ, পুলিশ তাকে সদর মহকুমাশাসকের দপ্তরে ঢুকতে বাঁধা দেয়।এই নিয়ে ধুন্ধুমার পরিস্তিতি তৈরি হয়।পুলিশের সঙ্গে চলে ধস্তাধস্তি।যদিও কি কারনে মলয় ব্যানার্জিকে বাধা দেওয়া হল তা নিয়ে কিছু বলতে চায়নি পুলিশ।

এই বিষয়ে মলয় ব্যানার্জি জানান, জলপাইগুড়ি যুব তৃণমূল সভাপতি সৈকত চ্যাটার্জির নির্দেশেই আমাকে মনোনয়ন পত্র জমা করতে বাঁধা দেয় পুলিশ।


প্রসঙ্গত, তৃণমুলের প্রথম প্রার্থী তালিকায় মলয় ব্যানার্জির (শেখর)নাম থাকলেও ঘোষণার ৩০মিনিট পরে ফের আর একটি তালিকা প্রকাশ করা হয় সেই তালিকায় মলয় ব্যানার্জির নাম বাদ দিয়ে সেখানে নিলম শর্মার নাম ঘোষনা করা হয়।এরপরই ১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্দল প্রার্থী হিসেবে ভোটে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নেন মলয় ব্যানার্জি।এদিন মলয় ব্যানার্জি তার অনুগামীদের নিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে আসলে পুলিশ দীর্ঘক্ষন রাস্তায় আটকে রাখে বলে অভিযোগ।এরপরই শুরু পুলিশের সঙ্গে বচসা ও ধাস্তাধস্তি।

এই বিষয়ে যুব তৃনমুল সভাপতি সৈকত চ্যাটার্জি জানান, মলয় ব্যানার্জি এর আগেও বেশ কয়েকবার ভোটে লড়াই করে তিনি হেরেছেন।পুলিশ কেনো আটকালো সেটা পুলিশ প্রশাসন বলতে পারবে।

অন্যদিকে পৌরসভার নির্বাচন আধিকারিক (SDO) সুদীপ পাল বলেন, আমি বিষয়টি জানিনা।লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দেখা হবে।

যদিও ঘটনার পর লিখিত অভিযোগ করেছেন মলয় চ্যাটার্জি এমনটাই জানান তার আইনজীবী পার্থ চৌধুরী।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site is protected by reCAPTCHA and the Google Privacy Policy and Terms of Service apply.